চাকরিতে কোটা প্রথা থাকছেই

নোয়াখালী বার্তা | ৫ মার্চ, ২০১৮ | ১১:১১ পূর্বাহ্ণ |আপডেট: ৫ মার্চ, ২০১৮ | ১১:১১

নোয়াখালী বার্তা ডেস্ক: চাকরি ক্ষেত্রে কোটা প্রথা পুনর্মূল্যায়ন চেয়ে করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ফলে চাকরিতে কোটা প্রথা থাকছেই। আজ বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ৩১ জানুয়ারি এ সংক্রান্ত রিট দায়ের করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র ও দুই সাংবাদিক। আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূইয়া।

রিটে বিবাদীরা হলেন- মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব, আইন সচিব, সংসদ সচিবালয়ের সচিব, জনপ্রশাসন সচিব, পিএসসির চেয়ারম্যান।

আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূইয়া জানান, ১৯৭২ সালে এক নির্বাহী আদেশে সরকারি, বেসরকারি, প্রতিরক্ষা, আধা সরকারি এবং জাতীয়করণকৃত প্রতিষ্ঠানে জেলা ও জনসংখ্যার ভিত্তিতে ত্রিশ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা ও দশ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের জন্য কোটা প্রবর্তন করা হয়। পরে বিভিন্ন সময়ে কোটায় সংস্কার ও পরিবর্তন আনা হয়।
বর্তমানে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি নিয়োগে সব মিলিয়ে ৫৬ শতাংশ কোটা বিদ্যমান রয়েছে। যেমন- প্রতিবন্ধী এক শতাংশ, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নাতি-নাতনি ত্রিশ শতাংশ, নারী দশ শতাংশ, জেলা কোটা দশ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পাঁচ শতাংশ। এ কোটা প্রথা সংবিধানের ১৯, ২৮ ও ২৯ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসসহ (বিসিএস) সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা সংস্কার করে তা ১০ শতাংশে নামিয়ে আনাসহ পাঁচ দফা দাবিতে সারাদেশে গত রবিবার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন চাকরি প্রত্যাশী সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

Please follow and like us:
0

এরকম আরো সংবাদ