সোনাইমুড়ীতে চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় আ’লীগ নেতাকে গুলি

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ৬ জুলাই, ২০২০ | ১৪:৪৯ অপরাহ্ণ |আপডেট: ৬ জুলাই, ২০২০ | ১৪:৫০

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলায় আমিশাপাড়া ইউনিয়নে চাঁদাবাজির প্রতিবাদ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নজরুল ইসলাম (৩৮) নামে এক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এ ঘটনায় যুবলীগ নেতা সুমন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনার পর থেকে আমিশাপাড়া বাজারে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত জাকির হোসেন (৩৬) পলাতক রয়েছেন। জাকির ৮নং সোনাপুর ইউনিয়নের হাসেমপুর গ্রামের রফিক মিস্ত্রির ছেলে।

রোববার (৫ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার ৮নং সোনাপুর ইউনিয়নের সোনাপুর বাজারের পশ্চিমে আমিশাপাড়া সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ নজরুল ইসলাম উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং আমিশাপাড়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের নাওড়ি গ্রামের মোহাব হাজী বাড়ির মোবারক উল্যার ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, আমিশাপাড়া ইউনিয়নের আমিশাপাড়া বাজারে আধিপত্য বিস্তার ও বাজার ইজারা নিয়ে জাকির বাহিনীর প্রধান জাকির চাঁদা দাবি করার একপর্যায়ে আমিশাপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন।

এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম প্রতিবাদ করলে জাকিরের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। পরে এর জের ধরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে পাশ্ববর্তী সোনাপুর ইউনিয়নের সোনাপুর বাজারে পশ্চিমে আমিশাপাড়া সড়কে জাকির বাহিনীর প্রধান জাকিরের হামলায় নজরুল ইসলাম গুলিবিদ্ধ হন।

স্থানীয়রা গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নজরুলকে উদ্ধার করে প্রথমে বজরা মেডিকেল নেওয়া হয়। পরে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করার পরামর্শ দেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গিয়াস উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সন্ত্রাসী জাকির গুলি চালালে এ ঘটনা ঘটে। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ