সাদ্দাম বাহিনীর বিরুদ্ধে মামলা;

বেগমগঞ্জে ৯৯৯ এ কল দিয়ে গৃহবধূর রক্ষা

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ১০ অক্টোবর, ২০২০ | ১৬:১০ অপরাহ্ণ |আপডেট: ১০ অক্টোবর, ২০২০ | ১৬:১০

ষ্টাফ রিপোর্টার: নোয়াাখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে গৃহবধূ নির্যাতনের রেশ কাটতে না কাটতে এবার একই উপজেলার গোপালপুরে কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর বাড়ীতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়ে একদল সন্ত্রাসী। স্থানীয় সাদ্দাম বাহিনী এ হামলা চালিয়ে অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেছেন প্রবাসীর স্ত্রী। শুক্রবার বিকালে গৃহবধূ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এরআগে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গোপালপুর ইউনিয়নের চাঁনকাশিমপুর গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বেগমগঞ্জ উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের চাঁনকাশিমপুর গ্রামের কুয়েত প্রবাসীর স্ত্রী (২১) শাশুড়ি, ৮ ও ৫ বছরের দুটি শিশু সন্তান নিয়ে স্বামীর বাড়িতে বসবাস করেন। একই গ্রামের সাইদুল হকের ছেলে স্থানীয় সাদ্দাম বাহিনীর প্রধান সাদ্দাম তার সহযোগীদের নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে তাকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এতে তিনি রাজি হননি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গৃহবধূকে সাদ্দাম বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে শুরু করে। অব্যহত হুমকিতে তিনি বাবার বাড়ি একই উপজেলার জিরতলি ইউনিয়নে চলে যান।
গৃহবধূ অভিযোগ করে বলেন, শাশুড়ির অসুস্থতার খবর পেয়ে তিনি গত ২দিন আগে স্বামীর বাড়িতে আসেন। বৃহস্পতিবার বিকালে সাদ্দাম ও তার লোকজন দফায় দফায় বাড়িতে এসে পুনঃরায় তাকে অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দেন। রাতে সাদ্দাম ও তার লোকজন প্রবাসীর বসত দালানের ছাদের ওপর ইয়াবা সেবন করে রাত ১২টার দিকে বসতঘরের দরজার কড়া নাড়ে। দরজা না খোলায় সাদ্দাম ও তার লোকজন প্রবাসীর দালানের দরজা ও জানালায় ভাঙচুর করে। কোন উপায় না পেয়ে ওই গৃহবধূ পুলিশের ৯৯৯ নাম্বারে কল দিয়ে পুলিশকে ঘটনা জানান। খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ রাত ১টার দিকে ওই নারীর বাড়িতে পৌঁছে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা।
বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ চৌধুরী বলেন, ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রীর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ