বেগমগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলা-ভাংচুর-লুটপাটের প্রতিবাদে মানববন্ধন

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ২ মার্চ, ২০২১ | ১৬:৫৯ অপরাহ্ণ |আপডেট: ২ মার্চ, ২০২১ | ১৬:৫৯

ষ্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালী বেগমগঞ্জ উপজেলায় কারখানা এবং বসত ঘরে ভাংচুর, লুটপাট ও হামলা পরবর্তী মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে মনাববন্ধন করেছে ভূক্তভোগী পরিবার ও এলাকাবাসী।
সোমবার উপজেলার রসুলপুরে ক্ষতিগ্রস্ত কারখানা ও বসত বাড়ির সামনের সড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ভূক্তভোগী সুলতান আহমেদ, স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হোসেন, শিক্ষক নেতা ও উপজেলা আওয়ামী লীগে সহসভাপতি নুরুল ইসলাম দুলাল, রসুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবদুল খালেক, স্থানীয় যুবলীগ নেতা মাসুদ, কাজল প্রমূখ।
মানববন্ধনে ভূক্তভোগী সুলতান আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, রসুলপুরের জুলুমবাজ ও জবর দখলকারী ছায়েদুল হক ও নুরুল হক গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রাত ২টার দিকে স্থানীয় ও বর্হিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে তাঁর মালিকীয় জায়গায় ভাড়াটিয়া মাসুদুর রহমানের ডাল ভাঙ্গানো কারখানার লোহার গেইট খুলে কারখানায় হামলা, ভাংচুর ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় ৯৯৯ নম্বরে কল করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সন্ত্রাসী মহিন উদ্দিন (২৭) ও নিজাম হোসেন (২৪) কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সন্ত্রাসীরা রাত ৩টার দিকে সুলতান আহমেদ এর বসত ঘরে হামলা করে ভাংচুর চালায়। এতে বাঁধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা সুলতান আহমেদ এবং ছেলে হুম্য়াুনকে মারধর ও কুপিয়ে আহত করে। এসময় তারা ঘরের নারীদের শরীরে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানী করে। পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
ঘটনায় ভুক্তভোগী সুলতান আহমদ বাদি হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করেন। পরবর্তীতে উল্টো সন্ত্রাসীদের মদদদাতা ছায়েদুল হক বাদি হয়ে আদালতে একটি পিটিশন মামলা দিয়ে সুলতান আহমদ ও তার পরিবারের সদস্যদের হয়রানি করছে।
সন্ত্রাসীদের তান্ডবের সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেন ভুক্তভোগী সুলতান আহমদ এবং এলাকাবাসী।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ