নোয়াখালীতে দেশীয় অস্ত্র ও ককটেলসহ আটক ১৮

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ০৭:০৭ পূর্বাহ্ণ |আপডেট: ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ০৭:০৭

ষ্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নে দেশীয় অস্ত্র ও ৬টি অবিস্ফোরিত ককটেলসহ ১৮ সন্ত্রাসীকে আটক করেছে পুলিশ । এসময় ঢাকা মেট্টো-চ- ১৩-২২৬৪ নম্বরধারী মাইক্রোবাসটি জব্দ করে পুলিশ ।
বুধবার (৮ আগস্ট) সন্ধ্যার দিকে বাটইয়া ইউনিয়নের ওটারহাট নামক স্থান থেকে তাদের আটক করা হয় । পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় প্রকাশ করেনি ।
জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামূল করিম চৌধুরীর অনুসারীরা ২০১৯ সালের ২০ নভেম্বরেরর সম্মেলনে ঘোষিত কমিটি পুর্ণাঙ্গ করে ঘোষণার দাবিতে বুধবার বিকাল ৫ টার দিকে কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের জামতলায় বিক্ষোভ করে। অপর দিকে একই সময় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের অনুসারীরা একই ইউনিয়নের ওটারহাটে জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি ঘোষণার দাবিতে মিছিল বের করে। এসময় ওটারহাট এলাকায় একটি মাইক্রোবাস যোগে ১৮ যুবক আসলে তাদেরকে সন্দেহজনকভাবে আটক করে স্থানীয়রা । খবর পেয়ে গাড়ীতে ৬টি ককটেল ও ৩টি লোহারপাতসহ ওই যুবকদের আটক করে পুলিশ। আটককৃত যুবকদের কবিরহাট থানায় নিয়ে জিঞ্জাসাবাদ চলছে ।
কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) টমাস বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘৬টি ককটেল ও ৩টি লোহারপাতসহ আটককৃতদের থানায় জিজ্ঞাবাদ চলছে। এ ব্যাপারে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।’
এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। এ বিষয়ে অভিযান শেষে বিস্তারিত তথ্যগুলো জানিয়ে দেওয়া হবে ।’
এ বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের অনুসারী জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন শাহীন বলেন, ‘একরামুল করিম চৌধুরীর অনুসারী বাটইয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপর হামলা চালাতে বাহির এলাকা থেকে মাইক্রোবাস যোগে অস্ত্র-সস্ত্রসহ সন্ত্রাসী ভাড়া করে নিয়ে আসলে এলাকাবাসী তাদের আটক করে পুলিশে সোর্পদ করে ।’
এদিকে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বাটইয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি ।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ