হাতিয়ায় সরকারি জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ১০ অক্টোবর, ২০২১ | ১৪:০৫ অপরাহ্ণ |আপডেট: ১০ অক্টোবর, ২০২১ | ১৪:০৫

ষ্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালী দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের বড় পোল এলাকায় সড়ক ও জনপদ এবং জেলা পরিষদের ইজারাকৃত সরকারি জায়গা দখল করে অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে শাহজাহান ভূঁইয়া নামের এক ভূমি দস্যুর বিরুদ্ধে ।
সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা গেছে, বুড়িরচর ইউনিয়নের বড় পোল এলাকায় সড়ক ও জনপদ এবং জেলা পরিষদের ইজারাকৃত জায়গায় অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মাণ করেছে স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমি দস্যু শাহজাহান ভূঁইয়া। জায়গাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগ ১৯৯৭ সালের ৩০ জুলাই ০১৪২৯৭৭ নং চেক মুলে বুড়িরচর মৌজার ৩৭৯নং খতিয়ানের ২৩৫৮ দাগের ২৭ শাতাংশ জায়গা খরিদ করে খাস খনিয়ানে ভুক্ত করেন। ওই জায়গায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের নলচিরা জাহাজমারা প্রধান সড়ক হয় । তার পাশে সড়ক সংলগ্ন জেলা পরিষদের বুড়িরচর মৌজার ০৪ নং খতিয়ানের ২৩৫৯ দাগের সাড়ে ৪ শতাংশ জায়গা ২০১৪ সাল ২০২১ সাল পর্যন্ত স্থানীয় ফাহাদ বিন মির্জা নামের এক ব্যক্তি ইজারা নেন ।
গত ১১ সেপ্টম্বর শাহজাহান ভূঁইয়া রাতের অন্ধকারে সরকারি সড়ক ও জনপদ এবং জেলা পরিষদের ওই জায়গায় অবৈধভাবে জোরপূর্বক ২৪০ফুট লম্বা একটি একচালা টিনের দোকানঘর নির্মাণ করে ফেলেন । ওই দোকানঘর নির্মাণের কারণে সড়কে যানবাহন ও মানুষের চলাচলের চরম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। সরকারি জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণে এলকাবাসী প্রতিবাদ করলে ভূমি দস্যু শাহাজাহান ও তার ভাড়াটে লোকজন স্থানীয়দের ওপর হামলার চেষ্টা করে ।
সরকারি জায়গা দখলের বিরুদ্ধে ২২ সেপ্টম্বর সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে এলাকাবাসীর পক্ষে স্থানীয় খবির উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন । অভিযোগের প্রেক্ষিতে সড়ক বিভাগ নোটিশের মাধ্যমে শাহজাহান ভূঁইয়াকে পাঁচ কার্য দিবসের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা অপসারন করার জন্য নির্ধেশ দেয়া হলেও অদ্যবদি ওই অবৈধ স্থাপনা সরানো হয়নি ।
এদিকে জেলা পরিষদ থেকে ইজারাদার ফাহিম বিন মির্জাও লিখিত অভিযোগ দেন জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষের কাছে। তারাও এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেননি ।
মুঠোফোন বন্ধ পাওয়ায় এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শাহজাহান ভূঁইয়ার বক্তব্য নেয়া যায়নি ।
জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী সফিউল আলম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে ।
সড়ক ও জনপদ বিভাগ নোয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী ড.আহাদ উল্ল্যাহ বলেন, অভিযোগ পেয়ে ওই অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিয়ে নোটিশ করা হয়েছে । যেহেতু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে স্থাপনা সরিয়ে নেওয়া হয়নি, সেক্ষেত্রে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ