নোয়াখালীর ইউপি নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন-ভাঙচুর, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ৩ জানুয়ারি, ২০২২ | ১৪:৪৬ অপরাহ্ণ |আপডেট: ৩ জানুয়ারি, ২০২২ | ১৪:৪৭

ষ্টাফরিপোর্টার : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার জিরতলী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মিলনের নৌকা প্রতীকের দুটি নির্বাচনী ক্যাম্পে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করার ঘটনা ঘটেছে । গতকাল রোববার রাত ১২টার দিকে জিরতলী ইউনিয়নের ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে । এতে দুই প্রার্থী পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন ।
নৌকার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম এ ঘটনার জন্য স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি সমর্থক) সামছুল আলম লাবলুকে দায়ী করেছেন । তবে এ বিষয়ে সামছুল আলম বলেন, ‘আমার নেতা-কর্মীদের হয়রানি করতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর লোকজন নিজেরাই এই নাটক সাজিয়েছে । আওয়ামী লীগ প্রার্থী রফিকুল ইসলাম বলেন, নৌকার নির্বাচনী প্রচারের জন্য জিরতলী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের বারোইচাতল ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মহেষপুর গ্রামে দুটি নির্বাচনী কার্যালয় করা হয়েছে । এর মধ্যে মহেষপুর কার্যালয়টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের স্থায়ী কার্যালয় । গতকাল রাত ১২টার দিকে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামছুল আলমের লোকজন ওই দুটি কার্যালয়ে ককটেল হামলা করেন । পরে তাঁরা কার্যালয়ের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করেন এবং আগুন ধরিয়ে দেন ।
সামছুল আলম বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অমান্য করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে একাধিক নির্বাচনী কার্যালয় করেছে, যা ইতিমধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে । নির্বাচনে আমার পক্ষে ভোটারদের গণজোয়ার দেখে নৌকার প্রার্থীর লোকজন নিজেরা নিজেদের নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলাভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের নাটক সাজিয়ে আমার লোকজনকে হয়রানি করার চেষ্টা করছে । রোববার রাতের ঘটনার সঙ্গে আমার কোনো কর্মী-সমর্থক জড়িত ছিল না ।
নৌকার দুটি নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলাভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা নিশ্চিত করেন বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক বলেন, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল । কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি । তবে ঘটনার বিষয়ে আওযামী লীগ প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী পরস্পরকে দোষারোপ করেছেন । এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।
পঞ্চম ধাপে ৫ জানুয়ারি জিরতলী ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে । নির্বাচনকে সামনে রেখে সোমবার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে প্রার্থীদের প্রচার । জিরতলী ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাতজন । মোট ভোটার ২১ হাজার ৭৫৬ জন ।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ