নোয়াখালীতে আ’লীগের দুগ্রুপের সংর্ঘষ, আহত ২০

নোয়াখালী বার্তা ডেস্ক | ১৪ জুন, ২০১৯ | ১৫:০২ অপরাহ্ণ |আপডেট: ১৪ জুন, ২০১৯ | ১৫:০২

সোনাইমুড়ী প্রতিনিধি:
আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার পাঁচবাড়িয়ায় আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের সংর্ঘষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এসময় ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার সন্ধা ৬টায় যুবলীগ নেতা সোহাগ ও স্বপন গ্রুপের মধ্যে এ সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।আহতদের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত থেমে থেমে সংঘর্ষ চলছিল।

স্থানীয়রা জানায় , আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় সংসদ সদস্য ইব্রাহিম এমপি সমর্থিত যুবলীগ নেতা সোহাগ ও প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি জাহাঙ্গীর আলম সমর্থিত স্বপন গ্রুপ সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় শহীদ উল্লা (৬৬), আনোয়ার (৪২), মান্না (২৪), ইয়াছিন (১৯), ইসরাত জাহান (১৩), হাবিব উল্লাব (৬০), লতিফ (৭৫), মাহমুদা (১৭), শহীদ উল্যাহ (৪৩) ও অহিদুল ইসলাম (৪৫) সহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।

সংঘর্ষে উভয় গ্রুপ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র ব্যবহার করে। সংর্ঘষ ছড়িয়ে পড়ে বসত বাড়ীতে। এ সময় বেপারী বাড়ী, পাঠান বাড়ী, পাটওয়ারি বাড়ী ও কেরানি বাড়ীর বসত ঘর, আসবাবপত্র ভাংচুর এবং লুটপাট করা হয়।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাবু বলেন এপিএস জাহাঙ্গীর সমর্থিত স্বপন চাঁদাবাজি মামলায় জামিনে মুক্ত হয়ে সকালে স্থানীয় নেজ্ঞু বেপারী বাড়ির কামালের বসত ঘরে হামলা চালায় । পরে দুপুরে জুমার নামাজে আসার সময় স্বপনের নেতৃত্বে কামাল সহ ৭জন কে কুপিয়ে জখম করে। অন্যদিকে জাহাঙ্গীর সমর্থিতরা অভিযোগ করেন এমপি সর্মথিত আ.ফ.ম বাবুর ভাতিজা শান্তুর নেতৃত্বে বাড়ি ঘরে হামলা হয়।

সোনাইমুড়ী থানার ওসি আবদুস সামাদ আজাদ বলেন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

Please follow and like us:
error0

এরকম আরো সংবাদ