নোয়াখালীতে অপহরণের পর স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ, ইউপি সদস্য আটক

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ | ১৩:১৭ অপরাহ্ণ |আপডেট: ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ | ১৩:১৭

সোনাইমুড়ী প্রতিনিধি:
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলায় নবম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী (১৬) কে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে ধর্ষণ করার অভিযোগে এক ইউপি সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এঘটনায় অপহৃতার বাবা আবদুল হালিম বাদী হয়ে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে এবং আসামীকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৭ নভেম্বর উপজেলার বিপুলাসার উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী ও উপজেলার চাষিরহাট ইউনিয়নের জাহানাবাদ গ্রামের আবদুল হালিমের কন্যাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার মোশারফ (৩৮) সিএনজি যোগে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে তাকে খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা থানা এলাকায় আসামীর খালার বাড়িতে নিয়ে তিন দিন ধরে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরে ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় মোশারফ মেম্বার চাষিরহাট নতুন বাজার এলে ওই ছাত্রীর ভাই ও এলাকার লোকজন গণমাধ্যম দিয়ে তাকে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে সোনাইমুড়ী থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অপহরণকারী মোশারফ মেম্বারকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

অভিযুক্ত মোশারফ মেম্বারের তথ্যমতে ওই ছাত্রীকে চট্টগ্রাম জেলার ভুজপুর থানাধীন দাঁতমারা এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

সোনাইমুড়ী থানার ওসি আব্দুস সামাদ পিপিএম জানান, এ ঘটনায় সোনাইমুড়ী থানায় মামলা হয়েছে। ভিকটিমের স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে শারীরিক পরীক্ষা শেষে ২২ ধারা জবানবন্দি নেয়া হয়। পরে আসামীকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Please follow and like us:
error0

এরকম আরো সংবাদ