নোয়াখালীতে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ৫ জুন, ২০২১ | ১২:০৪ অপরাহ্ণ |আপডেট: ৫ জুন, ২০২১ | ১২:০৪

ষ্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১২৭ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এটি গত ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে সংক্রমণ শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৫৬ শতাংশ। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি।
গতকাল শুক্রবার রাতে জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় এ তথ্য প্রকাশ করেছে।
সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার জেলার দুটি করোনা পরীক্ষাকেন্দ্রে ৩৯০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২৭ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়।
সূত্র জানায়, পজিটিভ শনাক্ত হওয়া ১২৭ জনের মধ্যে ৬৫ জন সদর উপজেলার বাসিন্দা। এ ছাড়া বাকিদের মধ্যে বেগমগঞ্জ উপজেলার রয়েছেন ১৭ জন, সোনাইমুড়ীর ১১ জন, চাটখিলে ২ জন, সেনবাগের ৯ জন, কোম্পানীগঞ্জের ১০ জন, কবিরহাটের ৪ জন, হাতিয়ার ২ জন ও সুবর্ণচরের ৭ জন।
জেলা সিভিল সার্জন মাসুম ইফতেখার বলেন, গত ঈদের সময় দেশের বাইরে থেকে অনেকে করোনাভাইরাস শরীরে নিয়ে নোয়াখালীতে এসেছেন। এ ছাড়া ঢাকা থেকেও অনেকে এসেছিলেন, যাদের শরীরে করোনাভাইরাস ছিল। ওই সব ব্যক্তি অবাধে চলাফেরার কারণে ঈদের পর জেলায় করোনা সংক্রমণ দ্রুত বাড়তে থাকে। বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে জেলা করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ কমিটি ঘোষিত লকডাউন কঠোরভাবে বাস্তবায়নের সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে। স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে কোনোভাবেই এ বিষয়ে ছাড় দেওয়া হবে না।
সিভিল সার্জন বলেন, করোনা শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের কন্টাক্ট ট্রেসিংয়ের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট বাড়িগুলো লকডাউন করে দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি আশপাশের বাড়ির লোকজন, সরকারি বিভিন্ন সংস্থার সদস্য ও জনপ্রতিনিধিদের করোনায় আক্রান্তদের বাড়ির দিকে নজর রাখার জন্য বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ