বেগমগঞ্জে সহিংসতা: জেলা যুবদলের সভাপতিসহ ৫ জন গ্রেপ্তার

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা | ২৭ অক্টোবর, ২০২১ | ১৬:৩৯ অপরাহ্ণ |আপডেট: ২৭ অক্টোবর, ২০২১ | ১৬:৩৯

ষ্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় জেলা যুবদলের সভাপতি মঞ্জুরুল আজিম সুমনসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ।
বুধবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম গ্রেপ্তারের তথ্য জানান । মঞ্জুরুল আজিম সুমন (৪৯) বেগমগঞ্জ উপজেলার গনিপুর গ্রামের মৃত হাজী আবদুল হকের ছেলে ।
পুলিশ সুপার বলেন, সোমবার (২৫ অক্টোবর) আদালতে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি ফয়সল ইনাম কমলের স্বীকারোক্তিতে সুমনের নাম উঠে আসে । এর পরিপ্রেক্ষিতে সুমনের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ভোরে রাঙ্গামাটি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ ।
গ্রেপ্তার অন্যরা হলো, বেগমগঞ্জ উপজেলার মধ্য হাজীপুর গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে রাজু রহমান (২৫), দক্ষিণ পূর্ব হাজীপুরের মৃত সোলেমান মিয়ার ছেলে সফিকুল ইসলাম সুজন (২৯), একলাশপুর গ্রামের হারুনুর রশিদের ছেলে মুরশিদ আলম রাসেল (২৭) ও চৌমুহনী পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের মৃত আলী আজ্জমের ছেলে আবদুর রহিম (৭০) ।
পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, মূলত ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্তদের শনাক্ত করা হচ্ছে । গ্রেপ্তারকৃত পাঁচজনের চারজনকেই ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে শনাক্ত করা হয়। আর ইতোপূর্বে গ্রেপ্তারকৃত জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি ফয়সল ইনাম কমলের স্বীকারোক্তিতে মঞ্জুরুল আজিম সুমনের নাম উঠে আসে ।
সুমনের বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ ৪টি মামলা রয়েছে।
কুমিল্লায় পুজাম-পে কোরআন রাখার ঘটনার জের ধরে গত ১৫ অক্টোবর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ বিভিন্ন উপজেলার মন্দিরে, পূজামন্ডপে, হিন্দুদের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনায় ২৬টি মামলায় এখনও পর্যন্ত ২০৯ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ । গ্রেপ্তার ছয় আসামি হামলায় নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন ।

Please follow and like us:

এরকম আরো সংবাদ