Select Page

আজ বুধবার, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি সময়: রাত ১১:৪৪

আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি : মওদুদ

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা
Noakhali Barta is A News Portal of Noakhali.

ফেব্রু ১৭, ২০১৮ | জাতীয়

স্টাফ রিপোটার: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এবং জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়ার জবাব দেবে। নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ যদি ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে তাহলে আওয়ামী লীগের খবর আছে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘প্রতিবাদী নাগরিক সভা’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মওদুদ। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল এ সভার আয়োজন করে।

খালেদার সাজার রায়ের কপি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপিল করা হবে জানিয়ে মওদুদ বলেন, আপিলের পাশাপাশি জামিন আবেদন করা হবে। পাঁচ বছর পর্যন্ত জামিন কোর্ট লিবারেল দেখে। আর তিন বছর পর্যন্ত জামিন এমনিই হয়ে যায়া। পাঁচ বছর পর্যন্ত এমন কিছু না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের এখানে (নাজিমউদ্দিন রোডে) যে কেন্দ্রীয় কারাগার ছিল, সেই কেন্দ্রীয় কারগার তো নাই। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বেগম জিয়াকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। এই কেন্দ্রীয় কারগারকে পরিত্যক্ত করা হয়েছে। কারণ এই কেন্দ্রীয় কারাগার ১শ-দেড়শ বছরের পুরানো একটা জায়গা ছিল। বেগম জিয়ার আমলে এই কারাগারের সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। আমাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নদীর ওই পারে কেরানীগঞ্জে নতুন জেলাখানা তৈরি করা হয়েছে এবং তারা (বর্তমান সরকার) সেখানে স্থানান্তর করেছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়াকে ১০৯ ও ৪০৯ ধারায় দণ্ড দেয়া হয়েছে। সেটা ভিন্ন একটি ধারা। তার মানে দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের মূল যে অভিযোগ, সেটা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। হাজার ইচ্ছার পরও এই কোর্ট সেটা গ্রহণ করতে পারেনি। নির্জলা একটি মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তাকে খাটো করার চেষ্টা করা হয়েছে। এতে সরকার লাভবান হবে না। এর উত্তর বাংলাদেশের মানুষ আগামী নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে দেবে।

‘নির্বাচন আমরা করতে চাই এবং করবো। দেশের মানুষ চাই আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। সে জন্য আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। তার সঙ্গে সঙ্গে আমরা আন্দোলনে অংশগ্রহণ করবো। যে আন্দোলনের মাধ্যমে এমন একটা অবস্থার সৃষ্টি হবে, যাতে দেশে নির্বাচনকালীন একটি নির্দলীয় সরকার গঠন করা সম্ভব হয় এবং সেই সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। বলা বাহুল্য সেই নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ যদি ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে তাহলে আওয়ামী লীগের খবর আছে,’ বলেন মওদুদ।

বাংলাদেশে গণতন্ত্রণের যে সঙ্কট চলছিল, সেই সঙ্কট আরও ঘনীভূত হয়েছে বলেও মনে করেন অষ্টম জাতীয় সংসদে আইন ও বিচার বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়েত্বে থাকা মওদুদ।

দলের চেয়ারপারসন সম্পর্কে বলতে গিয়ে মওদুদ বলেন, আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেছিলাম বেগম খালেদা জিয়া খালাস পাবে এবং তাকে নিদোষ ঘোষণা করা হবে। এটা কোনো ফৌজদারি মামলা নয়, এটা রাজনৈতিক মামলা।

মওদুদ বলেন, ‘এইবার আমরা প্রথম একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করবো, একটি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেও একটি সরকারকে অপসারণ করা যায়, সরকারকে বাধ্য করা যায়। আগামী নির্বাচন একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে। কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না এবং বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হতে পারে না।’বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এবং জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়ার জবাব দেবে। নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ যদি ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে তাহলে আওয়ামী লীগের খবর আছে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘প্রতিবাদী নাগরিক সভা’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মওদুদ। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল এ সভার আয়োজন করে।

খালেদার সাজার রায়ের কপি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপিল করা হবে জানিয়ে মওদুদ বলেন, আপিলের পাশাপাশি জামিন আবেদন করা হবে। পাঁচ বছর পর্যন্ত জামিন কোর্ট লিবারেল দেখে। আর তিন বছর পর্যন্ত জামিন এমনিই হয়ে যায়া। পাঁচ বছর পর্যন্ত এমন কিছু না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের এখানে (নাজিমউদ্দিন রোডে) যে কেন্দ্রীয় কারাগার ছিল, সেই কেন্দ্রীয় কারগার তো নাই। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বেগম জিয়াকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। এই কেন্দ্রীয় কারগারকে পরিত্যক্ত করা হয়েছে। কারণ এই কেন্দ্রীয় কারাগার ১শ-দেড়শ বছরের পুরানো একটা জায়গা ছিল। বেগম জিয়ার আমলে এই কারাগারের সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। আমাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নদীর ওই পারে কেরানীগঞ্জে নতুন জেলাখানা তৈরি করা হয়েছে এবং তারা (বর্তমান সরকার) সেখানে স্থানান্তর করেছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়াকে ১০৯ ও ৪০৯ ধারায় দণ্ড দেয়া হয়েছে। সেটা ভিন্ন একটি ধারা। তার মানে দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের মূল যে অভিযোগ, সেটা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। হাজার ইচ্ছার পরও এই কোর্ট সেটা গ্রহণ করতে পারেনি। নির্জলা একটি মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তাকে খাটো করার চেষ্টা করা হয়েছে। এতে সরকার লাভবান হবে না। এর উত্তর বাংলাদেশের মানুষ আগামী নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে দেবে।

‘নির্বাচন আমরা করতে চাই এবং করবো। দেশের মানুষ চাই আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। সে জন্য আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। তার সঙ্গে সঙ্গে আমরা আন্দোলনে অংশগ্রহণ করবো। যে আন্দোলনের মাধ্যমে এমন একটা অবস্থার সৃষ্টি হবে, যাতে দেশে নির্বাচনকালীন একটি নির্দলীয় সরকার গঠন করা সম্ভব হয় এবং সেই সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। বলা বাহুল্য সেই নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ যদি ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে তাহলে আওয়ামী লীগের খবর আছে,’ বলেন মওদুদ।

বাংলাদেশে গণতন্ত্রণের যে সঙ্কট চলছিল, সেই সঙ্কট আরও ঘনীভূত হয়েছে বলেও মনে করেন অষ্টম জাতীয় সংসদে আইন ও বিচার বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়েত্বে থাকা মওদুদ।

দলের চেয়ারপারসন সম্পর্কে বলতে গিয়ে মওদুদ বলেন, আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেছিলাম বেগম খালেদা জিয়া খালাস পাবে এবং তাকে নিদোষ ঘোষণা করা হবে। এটা কোনো ফৌজদারি মামলা নয়, এটা রাজনৈতিক মামলা।

মওদুদ বলেন, ‘এইবার আমরা প্রথম একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করবো, একটি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেও একটি সরকারকে অপসারণ করা যায়, সরকারকে বাধ্য করা যায়। আগামী নির্বাচন একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে। কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না এবং বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হতে পারে না।’

Facebook Comments Box

সর্বশেষ সংবাদ

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮