Select Page

আজ বুধবার, ১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি সময়: বিকাল ৩:২৬

ধর্ষণ চেষ্টায় গ্রাম্য সালিশ ১০ বার কান ধরে ওঠবস!

দৈনিক নোয়াখালীবার্তা
Noakhali Barta is A News Portal of Noakhali.

জানু ২১, ২০২৩ | চাটখিল, নোয়াখালী

ষ্টাফরিপোর্টার : নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে (১১) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আটক মো. সোহেলকে (৩৫) ১০ বার কান ধরে ওঠবস করিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সালিশের রায় মেনে নিতে ছাত্রীর বাবার কাছ থেকে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষরও নেয়া হয়েছে।
গতকাল শুক্রবার সকালে মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে স্থানীয় চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বাহালুলের নেতৃত্বে সালিশ বৈঠক বসে। ওই সালিস বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
স্থানীয়রা জানান, গত রবিবার রাত ৯টার দিকে স্থানীয় জনতা বাজার থেকে তার ভাই একই বাড়ির চাচা সম্পর্কিত মো. সোহেলের (৩৫) সঙ্গে ওই স্কুলছাত্রীকে বাড়ি পাঠান। এ সময় সোহেল তাকে সোজাপথে না নিয়ে নির্জন স্থানে পরনের কাপড় খুলে কয়েকবার ধর্ষণচেষ্টা করেন। পরে তার চিৎকারে পথচারীরা এগিয়ে এলে সোহেল পালিয়ে যান। তিনি মোহাম্মদপুর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রুস্তম পাটোয়ারীর ছেলে।
সকালে স্থানীয় চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বাহালুলের নেতৃত্বে মেয়েদের বাড়িতে সালিশ বৈঠক বসে। এতে অভিযুক্ত সোহেল, তার বাবা রুস্তম পাটোয়ারী, মামা স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী বেলাল, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সমাজপতি আবুল কাশেম পাটোয়ারী, আজিম মিয়াজীসহ এলাকার কয়েকশ লোক উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে ধর্ষণ চেষ্টার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় অভিযুক্ত মো. সোহেলকে উপযুক্ত শাস্তি হিসেবে ১০ বার কান ধরে ওঠবস করার সাজা দেয়া হয়। এছাড়া মেয়ের মা-বাবার পায়ে ধরে ক্ষমা প্রার্থনা করে। এ সময় সালিশের রায় মেনে নিতে সাদা স্ট্যাম্পে উভয়পক্ষের স্বাক্ষরও নেয়া হয়।
নির্যাতিতার বাবা বলেন, আমরা গরিব মানুষ। ঘটনার পর থানায় মামলা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আসামি আওয়ামী লীগ নেতার ভাগনে। তাই স্থানীয় সমাজপতিরা বিচারের আশ্বাস দিয়ে সালিশের আয়োজন করেন। তাদের কথার বাইরে কিছু করলে এলাকায় থাকতে দেবে না।
ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বাহালুল সালিশ বৈঠকের কথা স্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন, উভয়পক্ষের সম্মতিতে সালিশের আয়োজন করা হয়েছে। এতে ধর্ষণ চেষ্টার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় সবার সিদ্ধান্তে অভিযুক্ত সোহেলকে কান ধরে ওঠবস করার সাজা দেয়া হয়েছে। এছাড়া ভবিষ্যতের জন্য স্ট্যাম্পে স্বাক্ষরও রাখা হয়েছে।
চাটখিল থানার দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবু জাফর বলেন, বিষয়টি আমাদের জানা নেই। কেউ অভিযোগও করেনি। খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ সংবাদ

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮